আজ আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম মৃ’ত্যুবার্ষিকী

রুপালি গিটারের মালিক হারিয়ে গেছেন মাত্র ৫৬ বছর বয়সে। ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর সকালে সবাইকে কাঁদিয়ে পৃথিবী থেকে বিদায় নেন তিনি।

দেখতে দেখতেই বছর পেরিয়ে গেল। আজ আইয়ুব বাচ্চুকে হারিয়ে ফেলার সেই দিন।

১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম নন্দিত ব্যান্ড তারকা ও গিটার লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চুর। মৃ’ত্যুর পর সেই চট্টগ্রামেই তাকে চিরশায়িত করা হয়েছে।

ছোটবেলা থেকেই গিটারের প্রেমে পড়েন তিনি। কলেজজীবনে বন্ধুদের নিয়ে ‘গোল্ডেন বয়েজ’ নামে একটা ব্যান্ডদল গড়ে তোলেন আইয়ুব বাচ্চু, পরে এর নাম পাল্টে রাখা হয় ‘আগলি বয়েজ’।

বিয়েবাড়ি, জন্মদিন আর ছোটখাটো নানা অনুষ্ঠানে তাদের এই ব্যান্ডদল গান করত।

আইয়ুব বাচ্চুর বন্ধুরা যে যার মতো একেক দিকে ছড়িয়ে পড়লেও আইয়ুব বাচ্চু ব্যান্ডদল ‘ফিলিংস’র সঙ্গে যুক্ত হয়ে যান। এরপর ১৯৮০ সালে তিনি যোগ দেন ‘সোলস’ ব্যান্ডে।

এই ব্যান্ডের লিডগিটার বাজানোর দায়িত্বে ছিলেন টানা ১০ বছর। ১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল গড়ে তোলেন নতুন ব্যান্ড ‘এলআরবি’।

সঙ্গীতের আঙিনায় আইয়ুব বাচ্চু একাধারে গীতিকার, সুরকার, পরিচালক এবং গায়ক হিসেবে জনপ্রিয়। আজ তার প্রথম মৃ’ত্যুবার্ষিকী। তার প্রিয়জনেরা নানা আয়োজনে স্মরণ করছেন তাকে।

শুক্রবার বাদ আসর মগবাজার মসজিদে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করছে তার পরিবার। এছাড়া চট্টগ্রামে আইয়ুব বাচ্চুর কবর জিয়ারত করবেন তার প্রিয়জনেরা।

সেখানে দোয়ার মাহফিলের আয়োজন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চুর স্ত্রী চন্দনা। চন্দনা জানালেন, মেয়ে ফাইরুজ সাফরাকে নিয়ে তিনি চট্টগ্রামেই থাকবেন ১৮ অক্টোবর।

পরিবারের আয়োজন ছাড়াও তার শুভাকাঙ্ক্ষী ও ভক্তরাও বিভিন্ন স্থানে দোয়ার আয়োজন করেছেন। চ্যানেল আই, নাগরিক টেলিভিশনসহ কয়েকটি টিভি চ্যানেলও আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম মৃ’ত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে।

মূলত রক ঘরানার কণ্ঠের অধিকারী হলেও আধুনিক গান, ক্লাসিক্যাল সঙ্গীত এবং লোকগীতি দিয়েও শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। আইয়ুব বাচ্চুর কণ্ঠ দেয়া প্রথম গান ‘হারানো বিকেলের গল্প’।