বিদেশে পালাতে গিয়ে বিমান থেকে গ্রে’ফ’তা’র ক্যাসিনো ডন সেলিম

অনলাইনে ক্যাসিনো চালাতেন তিনি। ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান থেকে নিজেকে রক্ষায় দেশ ছাড়তে চেপে বসেছিলেন থাই এয়ারের বিমানে।

বিজনেস ক্লাসের এই যাত্রী অবশ্য দেশ ছাড়তে পারেননি। বিমান ছাড়ার আগেই তাকে পাকড়াও করেছে র‌্যাবের একটি দল।

থাই এয়ারওয়েজের ব্যাংককগামী ফ্লাইট থেকে সেলিম প্রধান নামের ওই যাত্রীকে আটক করা হয়। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জে।

ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে ব্যাংককের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার কথা ছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের কারণে তিনটার দিকে ফ্লাইটটি ছেড়ে যায়। গ্রেপ্তার সেলিম প্রধানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব।

আটককৃত ব্যক্তি ক্যাসিনোর সঙ্গে জড়িতের অভিযোগে র‌্যাবের হাতে আটক বিসিবির পরিচালক লোকমান হোসেন ভুঁইয়ার অন্যতম সহযোগী।

তিনি অনলাইন ক্যাসিনোর অর্জিত আয় বিদেশে পাচার করতে পারেন এমন তথ্য আগে থেকে ছিল র‌্যাবের কাছে। লোকমান আটকের পর তিনি গা-ঢাকা দেন। র‌্যাব তাকে খুঁজছিল।

ক্যাসিনোর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বিমানবন্দরে তার নামে রেড আলার্ট ছিল। র‌্যাবের ধারণা তিনি বিদেশে পালিয়ে যাচ্ছিলেন।

তাকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার।

র‌্যাব জানায়, গতকাল থাই এয়ারওয়েজের ‘টিজি-৩২২’ ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে ১টা ৩৫ মিনিটে ব্যাংককের উদ্দেশে উড্ডয়ন করার কথা ছিল।

সেলিম প্রধানের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে। তিনি যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

র‌্যাবের গোয়েন্দা বিভাগের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা গতকাল জানান, সেলিম অনলাইন ডন নামে খ্যাত।

তিনি লোকমানের ঘনিষ্ট সহযোগী। লোকমানকে র‌্যাব প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তার নাম উঠে আসে। এরপর থেকে র‌্যাব তাকে ধরার জন্য সাঁড়াশি অভিযান চালায়। কিন্তু, তিনি আত্মগোপনে চলে যান।

সূত্র জানায়, তিনি যাতে বিদেশে কোনভাবে পালিয়ে না যান সেজন্য তার নামে স্থল ও আকাশ পথে রেড আলার্ট দেয়া হয়।

গতকাল তিনি বিদেশে পালিয়ে যাচ্ছিলেন বলে র‌্যাবের কাছে তথ্য আসে। তিনি দুপুরে বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন বিভাগে যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করার পর বিমানে উঠেন।

এসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের গোয়েন্দা টিমের সদস্যরা বিমান থেকে তাকে আটক করে। সূত্র : মানবজমিন