ভরা মৌসুমের শুরুতেই জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

ভরা মৌসুমের শুরুতেই আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় নদী ও সাগর মোহনায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ পড়তে শুরু করেছে জেলেদের জালে। এতে জেলে ও মৎস্যজীবীদের মুখে ফুঁটেছে আনন্দের ঝিলিক।

মৎস্যজীবীরা বলছেন, মৌসুমের শুরুতে মধ্যম সাইজের ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে বেশি। বড় ইলিশও পাওয়া যাচ্ছে, তবে পরিমাণে কম। এদিকে আগামী ২৩ জুলাই সাগরে মাছ ধরায় ৬৫ দিনের মেয়াদ শেষ হলে জেলেদের জালে আরও বেশি ইলিশ ধরা পড়বে এবং তখন সরবরাহও বাড়বে আশা মৎস্য কর্মকর্তাদের।

গত ৩০ জুন জাঁটকা শিকারে ৮ মাসের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ায় শুরু হয় ইলিশ মৌসুম। এর মধ্যে গত ২দিন ধরে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিসহ আবহাওয়া উপযোগী থাকায় মেঘনা বক্ষসহ অভ্যন্তরীণ অন্যান্য নদী এবং সাগর মোহনায় জেলেদের জালে পড়তে শুরু করে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। গত শনিবার ৫শ’ মণের বেশি এবং গতকাল রবিবার বরিশাল পোর্ট রোডের মোকামে এসেছে ৭শ’ মণেরও বেশি ইলিশ। এতে কর্মব্যস্থতা বেড়েছে বরিশালের পোর্ট রোডের ইলিশ মোকামে।

পোর্ট রোডের ইলিশ আড়তদার মো. নাসিরউদ্দিন জানান, গতকাল বরিশাল মোকামে দেড় কেজি সাইজের প্রতিমণ ইলিশ ৫০ হাজার, ১ কেজি ২শ’ গ্রাম সাইজ প্রতিমণ ৩৮ থেকে ৪০ হাজার, এক কেজি সাইজ প্রতিমণ ৩৪ হাজার, এলসি সাইজ (৬শ’ থেকে ৯শ’ গ্রাম) প্রতিমণ ২৯ হাজার, ভেলকা (৪শ’ থেকে ৬শ’ গ্রাম) প্রতিমণ ২০ হাজার এবং গোটলা সাইজ প্রতিমণ ১৪ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে সামান্য বাড়তি দামে বিকি হয়েছে।

জেলা মৎস্য দপ্তরের কর্মকর্তা (ইলিশ) ড. বিমল চন্দ্র দাস বলেন, পহেলা জুলাই থেকে ইলিশের ভরা মৌসুম শুরু হয়েছে। এখন নদ-নদীতে ইলিশ শিকারে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় অভ্যন্তরীণ নদ-নদীতে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। আগামী ২৩ জুলাই সাগরে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়ে গেলে সাগরেও প্রচুর ইলিশ ধরা পড়বে। তখন মোকামগুলো ইলিশে সয়লাব হবে আশা করেন তিনি।